বাংলাদেশ একর্ড মাসিক আপডেট – জুলাই ২০১৫

স্বাক্ষরকারী, কারখানা এবং একর্ডের কারখানা নিরাপত্তা কার্যক্রমে আগ্রহী সকলের জন্য বাংলাদেশ একর্ডের নিউজলেটার।

পরিদর্শন
সাম্প্রতিক মাসগুলোতে আমরা আমাদের ফলো আপ পরিদর্শনের হার বাড়াতে পেরেছি। আমাদের আরও ইঞ্জিনিয়ার স্টাফ নিযুক্ত হওয়ায় এবং সিডিউলের কম বিঘ্নতায় আমরা কৃতজ্ঞ। ৬৫০ টির বেশি একর্ডভুক্ত কারখানায় সম্পন্ন সংশোধনী কাজ এবং কাজের অগ্রগতি যাচাই করার লক্ষ্যে অন্তত একটি করে হলেও ফলো আপ পরিদর্শন হয়েছে। প্রতিটি কারখানার সর্বশেষ অগ্রগতি একর্ডের একর্ডের পরিদর্শন প্রতিবেদন এবং ক্যাপ’স পেইজে দেখা যাবে।

ফলো আপ পরিদর্শনে প্রাপ্ত নতুন কিছু ফলাফল ও সংশোধনী কর্ম পরিকল্পনা সংযোজিত হয়েছে যা একর্ড ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে। একর্ড এই নতুন ফলাফলগুলোর সংশোধনী কাজ যাচাই করবে।

সকল কারখানা ও স্বাক্ষরকারীগনকে একর্ড আহবান জানাচ্ছে, কোন ধরনের নিরাপত্তা বিষয়ক আশংকা থাকলে তা অবিলম্বে একর্ড কে জানাতে যেন একর্ড এই বিষয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ফলো আপ পরিদর্শন পরিচালনা করতে পারে।

সংশোধন
তৈরী পোশাক কারখানার নিরাপত্তার জন্য একর্ড এবং আইএফসি নতুন আর্থিক কর্ম পরিকল্পনা ফাইন্যান্স কর্পোরেশন এর সাথে যৌথভাবে বাংলাদেশের সহযোগী ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে কারখানাগুলোর জন্য সহজ শর্তের লোনের আর্থিক কর্ম পরিকল্পনা ঘোষনা করতে পেরে একর্ড আনন্দিত। আরও জানতে এই প্রতিবেদন পড়ুন। এই ঋণ সুবিধা কিভাবে পাওয়া যাবে তা জানানোর জন্য আমরা শীঘ্রই কারখানা ও স্বাক্ষরকারী কোম্পানিগুলোর জন্য একটি বিশদ নির্দেশাবলী প্রকাশ করব। সংশোধনীর জন্য আর্থিক নির্দেশনার ক্ষেত্রে আরও সাধারন তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। প্রত্যেকটি কারখানায় ক্যাপ সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের জন্য দিকনির্দেশনা দিতে একর্ড দল সদাপ্রস্তুত। অনলাইন রিসোর্স সেন্টার এর মাধ্যমে নির্দিষ্ট প্রযুক্তিগত দিকনির্দেশনা ও অন্যান্য জিজ্ঞাসার জন্য একর্ড কেস হ্যান্ডলারগনের মাধ্যমে অনুসন্ধান করার জন্য কারখানাগুলোকে উৎসাহ দেয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি একর্ড কার্যকর সংশোধনী দিকনির্দেশনায় সকল পরিচিত ভেন্ডরদের একটি তালিকা আপডেট করেছে। এক্ষেত্রে, আপনাদের অবগতির জন্য জানানো হচ্ছে, একর্ড কোন ভেন্ডর অথবা সার্ভিস প্রোভাইডার কে সমর্থন/ অনুমোদন করে না, তাই সকল কারখানাকে তৃতীয় পক্ষের দক্ষতা যাচাই করে নিতে হবে।

আসন্ন সপ্তাহগুলোতে একর্ডের ওয়েবসাইটে একর্ডের অন্তর্ভুক্ত সকল কারখানার অগ্রগতি প্রকাশ করার জন্য একর্ড প্রস্তুতি গ্রহণ করছে। কারখানার অবস্থা বুঝতে আরও তথ্যের জন্য
একর্ড দপ্তরে যোগাযোগ করুন।

সংশোধনী কাজে অগ্রগতির সাথে সাথে, বেশ কিছু পরিদর্শিত কারখানায় ধীর গতি ও অপর্যাপ্ত সংশোধনী কাজ নিয়ে একর্ড উদ্বিগ্ন। সংশোধনী কাজ তরান্বিত করতে, সংশোধনী কাজে বিলম্ব বা ধীর বাস্তবায়নের প্রধান কারন অনুসন্ধান এবং একর্ডের পৃষ্ঠপোষকতা থাকা সত্বেও যেসব ক্ষেত্রে সংশোধনী কাজের গতি ও অবস্থা অপর্যাপ্ত তা দ্রুত করার প্রচেষ্টা চলছে।

শ্রমিকদের অংশগ্রহন
OSH কমিটি পাইলট প্রোগ্রাম: একটি কার্যকরী কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক (ওএসএইচ) কমিটি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ উপকরনগুলো চূড়ান্ত করার জন্য একর্ড টিম ট্রেড ইউনিয়ন, স্বাক্ষী ও স্বাক্ষরকারী কোম্পানির একটি কর্মী দলের সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করছে।

একর্ড সকল সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের সাথেও যোগাযোগ রাখছে যেন, চূড়ান্ত বাংলাদেশ শ্রম আইনের নিয়মসমূহের বাস্তবায়নের মাধ্যমে শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্বকারী নীতির সাথে সামঞ্জস্য রেখেই এই কার্যক্রম গড়ে উঠে।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে স্বাক্ষরকারীদের মনোনীত কারখানাগুলোর সাথে আমরা অতি শীঘ্রই আলোচনা শুরু করব। একর্ড এবং স্বাক্ষরকারীগন একত্রে প্রতিটি নির্বাচিত কারখানায় বৈঠকের মাধ্যমে পরীক্ষামূলক পরিকল্পনার ব্যাপারে জানাবে। একই সাথে আমরা এই পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের ব্যাপারে আগ্রহী যে কোন কারখানার কাছ থেকে যে কোন ধরনের জিজ্ঞাসাকে স্বাগত জানাচ্ছি।

অভিযোগ প্রক্রিয়া: এপ্রিল ২০১৫ এর ভূমিকম্পের ঘটনার পর যেসকল কারখানা থেকে কর্মচারী/ শ্রমিকরা নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশ্ন নিয়ে একর্ডের সাথে যোগাযোগ করেছিল, সেই প্রতিটি কারখানায় একর্ড পরিদর্শন করেছে। ঐ সকল কারখানায় নতুন সংযোজিত সংশোধনী কাজ থাকলে, সেগুলোর সমাধান নিশ্চিত করতে একর্ড কারখানা মালিক, শ্রমিক ও ব্র্যান্ডের সাথে কাজ করে যাচ্ছে।

একর্ডে বর্তমানে ৩ টি এমন অভিযোগ প্রক্রিয়াধীন আছে যেখানে, অভিযোগকারী শ্রমিকদের কাছ থেকে নিরাপত্তা বিষয়ক আশংকা প্রকাশ করার ফলে প্রতিশোধমূলক আচরনের শিকারের অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে।

স্টেকহোল্ডারদের সংশ্লিষ্টতা
বর্তমান অগ্রগতি এবং স্বাক্ষরকারী প্রতিনিধি ও বাংলাদেশের প্রধান সংগঠকদের একসাথে অগ্রগতির উপায় নিয়ে আলোচনার উদ্দেশ্যে গত মাসে ঢাকায় একর্ডের স্টিয়ারিং কমিটির মিটিং অনুষ্ঠিত হয়।
এই আলোচনার বিষদ বিবৃতিটি অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে।

একর্ড সরকারের ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যান এর সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে এবং সরকার ও আইএলও কে ১০০০ কারখানা পরিদর্শনের মাইলফলকে পৌঁছানোর জন্য অভিনন্দন জানাচ্ছে।

বাংলাদেশের বাইরেও, বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমাদের কার্যক্রম কীভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তা নিয়ে একর্ড টিম কথা বলেছে:

রেসপনসিবল বিজনেস কন্ডাক্ট এর উপর ওইসিডি গ্লোবাল ফোরামে, অংশীদারিত্ব নিয়ে প্যানেল বৈঠক হয়। প্যারিস, ১৯শে জুন

হেগ ইনস্টিটিউট অব গ্লোবাল জাস্টিস ব্যাবসা এবং মানবাধিকার এর উপর সম্মেলন। দ্য হেগ, ২৫শে জুন

এথিকাল ফ্যাশন ২০২০, হাউজ অব লর্ডস ডিবেট, ইনস্টিটিউট অব অকুপেশনাল সেফটি এন্ড হেল্‌থ আয়োজিত, ফ্যাশনের ক্ষেত্রে নীতিমালা ও স্থায়িত্বের জন্য ফ্যাশন বিল্পব ও সংসদীয় সকল দল নিয়ে সংগঠিত। লন্ডন, ২৯ শে জুন

পরিচালনা
পরবর্তী স্টিয়ারিং কমিটি মিটিং অনুষ্ঠিত হবে ১৩-১৪ অক্টোবর এবং জুন মাসের সভার কার্যবিবরণী একর্ডের ওয়েবসাইটে শীঘ্রই পাওয়া যাবে।

কোম্পানি ককাস: আমস্টারডামে ১লা জুলাই স্বাক্ষরকারী কোম্পানিগুলো তাদের স্টিয়ারিং কমিটির প্রতিনিধিগনের সাথে একটি বৈঠকে বসেন। সেখানে ৮০ টি কোম্পানি প্রতিনিধিত্ব করে এবং একর্ড বাস্তবায়নের কৌশলগত বিষয় নিয়ে আলোচনা করে।

আসন্ন ঘটনাসমূহ
স্বাক্ষরকারীদের তাদের সহকর্মীদের সহ একত্রিত করে একর্ড বাস্তবায়নের সর্বোৎকৃষ্ট উপায় নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতা আলোচনার উদ্দেশ্যে একর্ড টিম সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাস জুড়ে বিভিন্ন আঞ্চলিক মিটিং এর আয়োজন করবে। স্বাক্ষরকারীগন আমাদের ওয়েবসাইটে স্বাক্ষরকারী লগইন এর মাধ্যমে সাইন আপ করতে পারবেন।